Murshidabad Loksabha: মুর্শিদাবাদে প্রার্থী সেলিমই, রবিবারই ময়দানে

শুভ্র সাহাঃ Murshidabad Loksabha আসন নিয়ে   তর্কের অবসান। মুর্শিদাবাদে প্রার্থী হচ্ছেন মহম্মদ সেলিমই ( Md Selim) । কংগ্রেস সমর্থিত বামফ্রন্ট প্রার্থী হিসেবে আজই হতে পারে নাম ঘোষণা। বামেদের নজরে রয়েছে, মুর্শিদাবাদ লোকসভা আসন। সেই আসনেই , প্রার্থী হবেন  সেলিম। রবিবারই এই কেন্দ্রে ভোটের ময়দানে নামার কথা মহম্মদ সেলিমের।

২০২২-এ সিপিএমের  রাজ্য সম্পাদক হন মহম্মদ সেলিম। এরপর থেকেই লাগাতার এসেছেন মুর্শিদাবাদ জেলায়।  লোকসভা নির্বাচনের আবহে মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রে কর্মসূচীর ঝাঁঝও বাড়িয়েছে সিপিএম।ডিওয়াইএফআই’এর ইনসাফ যাত্রা থেকে ইসলামপুর, হরিহরপাড়ায় পদযাত্রা। সেলিমের ঘনঘন মুর্শিদাবাদ আসাতেই জোড়ালো হয়েছিল প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা।

 

তবে সাধারণত ভোটে দাঁড়ান না  সিপিএমের রাজ্য সম্পাদকরা। সংগঠনের অন্দরে এই নিয়ে ছিল তর্কও। কংগ্রেসের সমর্থন নিয়েও ছিল অনিশ্চয়তা।তবে রাজ্যে লোকসভা নির্বাচনে বাম কংগ্রেস আসন সমঝোতা মোটামুটি চুড়ান্ত। জোট নিশ্চিত হওয়ায় এই কেন্দ্রে আশাবাদী সিপিএম।

সিপিএম সূত্রে খবর, সেলিমের ভোটে দাঁড়ানো নিয়ে মিলেছে শীর্ষ নেতৃত্বের শিলমোহর।আজই হতে পারে নাম ঘোষণা। আর শনিবারই মুর্শিদাবাদে ভোট ময়দানে নামছেন  মহম্মদ সেলিম।শনিবার সকালে  মুর্শিদাবাদ লোকসভার সাগরপাড়ায় করবেন কর্মীসভা। দুপুরে বামফ্রন্টের  কর্মীসভা করবেন ইসলামপুরে।

 

তৃণমূলের হয়ে এই কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন গতবারের জয়ী সাংসদ, আবু তাহের খান। বিজেপি’র টিকিটে দাঁড়িয়েছেন মুর্শিদাবাদের বিজেপি বিধায়ক গৌরী শঙ্কর ঘোষ। এবার কংগ্রেসের সমর্থনে সিপিএম প্রার্থী হিসেবে খোদ রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিম মাঠে নামায় টানটান উত্তেজনা এই লোকসভায়।

রাজ্য সম্পাদক হওয়ার পরই মুর্শিদাবাদ চিনতে বাড়তি আগ্রহ দেখিয়েছিলেন মহম্মদ সেলিম। দলের জেলা কমিটির মিটং’এ যগ দিয়েছেন মাঝে মাঝেই। ফারাক্কা থেকে জলঙ্গী করেছেন বড় বড় সমাবেশ।

মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের (Murshidabad Loksabha)  দিকে বামেদের নজর ছিল প্রথম থেকে। ভোট ঘোষণার আগেই ময়দানে রয়েছে  সিপিএমও। বেশ কয়েক মাস ধরেই ডোমকল মহকুমায় পরপর বড় কর্মসূচী নিতে দেখা গিয়েছে সিপিএমকে। মীনাক্ষী মুখার্জি, ধ্রুবজ্যোতি সাহাদের নেতৃত্বে ইনসাফ যাত্রাও তিন ধরে টানা হেঁটেছে মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের ভগবানগোলা থেকে হরিহরপাড়া।

৭ মার্চ   ইসলামপুরে মিছিলে হেঁটেছেন  সিপিএম রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিমের। একইদিনে ডোমকলে এই মহকুমার ডিওয়াইএফআই-এর নেতাকর্মীদের নিয়ে হয়  নির্বাচনী কর্মশালা। সেখানে ছিলেন  সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আভাস রায়চৌধুরী, ডিওয়াইএফআই’এর রাজ্য সম্পাদক মিনাক্ষী মুখার্জি, রাজ্যসভাপতি ধ্রুবজ্যোতি সাহা, প্রাক্তন মন্ত্রী আনিসুর রহমান। বিকেলে হরিহরপাড়ায় মিছিলেও ছিলেন মহম্মদ সেলিম।  ১০ মার্চ ভগবানগোলায় সমাবেশ করেছে সিপিএম। সেখানেও বক্তব্য রেখেছেন মহম্মদ সেলিম। ২৪ মার্চ ফের সেলিম কর্মীসভা করবেন সাগরপাড়া ও ইসলামপুরে।

 

১৯৮০ সালে এই লোকসভা আসন থেকে জয়ী হন সিপিএমের মাসাদুল হোসেন। মুসলিমদের ওবিসি সংরক্ষণের আওতায় নিয়ে আসার ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল এই সাংসদের। ১৯৯৮ সালে তার মৃত্যুতে আসন খালি হলে এই আসন থেকে জয়ী হন মইনুল হাসান।  ২০০৪ সালে মান্নান হোসেনের কাছে হারেন তিনি।

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বামেরা এই রাজ্য থেকে প্রায় মুছে গেলেও মুর্শিদাবাদ লোকসভা আসনে জয়ী হন সিপিএমের বদরুদ্দোজা খান। ভোটে হারেন মান্নান।  তবে ২০১৯ সালে যদিও এই কেন্দ্রে ফোটে ঘাসফুল। জয়ী হন তৃণমূলের আবু তাহের খান। সেবার বিজেপি প্রার্থী করেছিল তৃণমূল ছেড়ে আসা হুমায়ুন কবীরকে। এই আসনে প্রার্থী দিইয়েছিল কংগ্রেস, সিপিএম দুই দলই। তবে এবার বাম, কংগ্রেস বোঝাপড়া হওয়ায় সিট নিয়ে আশাবাদী দুই পক্ষই।