‘৫০ লাখ” বনাম “গদ্দার ” । শুভেন্দু, কানাই তরজা মুর্শিদাবাদে

MadhyqbangaNewsDesk: কেউ বলছেন গুরুর মার। কেউ আবার গুরু মারা বিদ্যা। সাগরদিঘি ভোটের আগে এই নিয়েই জমজমাট মুর্শিদাবাদের রাজনীতি।

সাগরদিঘির ভোট প্রচারে এসে নবগ্রামের বিধায়ক, তৃণমূলের জঙ্গিপুর সাংগঠনিক জেলার চেয়ারম্যান কানাই চন্দ্র মণ্ডলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন বিজেপি বিধায়ক, রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।
মঙ্গলবার মনিগ্রামের মঞ্চ থেকে কানাই মন্ডলকে নিশানা করে শুভেন্দু বলেন, “ আপনি (কানাই মণ্ডল) আমার কাছ থেকে ৫০ লক্ষ টাকা নিয়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। আর এনায়েতের কাছ থেকে একটা স্করপিও গাড়ি”।
কানাইয়ের বিরুদ্ধে তৃণমূলের হয়ে ‘চোখ দেখিয়ে’ নির্বাচন করার অভিযোগও এনেছেন শুভেন্দু। হুঁশিয়ারি দিয়েছেন সাবধানে চলার।
২০১৮ সালের ২ রা ডিসেম্বর দীর্ঘদিনের বাম রাজনীতি ছেড়ে শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে ঘাসফুল শিবিরে এসেছিলেন কানাই মণ্ডল। সিপিআই(এম)’এর দাপুটে বিধায়ক একুশের ভোটে নবগ্রাম থেকে জিতেছেন তৃণমূলের টিকিটে। এখন দলের জঙ্গিপুর সাংগঠনিক জেলার চেয়ারম্যানও।
অন্যদিকে কানাইয়ের দল বদলের সময়ের পরিবহণ দপ্তরের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী দল পাল্টেছেন নিজেই। নন্দীগ্রামে বিজেপি’র হয়ে ভোটে লড়ে বিধানসভার বিরোধী দলনেতা তিনি। রাজ্য বিজেপি’র অন্যতম মুখ। রাজনৈতিক মহলের দাবি, বাম রাজনীতি ছেড়ে কানাইয়ের তৃণমূলে যোগদানে ভূমিকা আছে সেই সময় মুর্শিদাবাদ জেলায় দলের দায়িত্বে থাকা শুভেন্দু অধিকারীর। সেই শুভেন্দুই এবার মুখ খুললেন কানাই মণ্ডলের বিরুদ্ধে। সাগরদিঘি আসনে নির্বাচনের ভরাবাজারে শুভেন্দুর বয়ান ঘিরে শুরু রাজনৈতিক তরজাও।
শুভেন্দুর বিরুদ্ধেই টাকার বিনিময়ে দল বদলের অভিযোগ করেছেন কানাই মন্ডল।
যদিও কানাই মণ্ডল বলেন, “ উনি মিথ্যাচারের রাজনীতি করছেন। দল বদলের খেলাটা উনি খেলেন। সেই খেলায় উনি পারদর্শী”।
কানাইয়ের তোপ, “ তিনি ( শুভেন্দু) গদ্দারি করেছেন, মিরজাফরি করেছেন। নরেন্দ্র মোদি , অমিত শাহর কাছে কতো টাকায় বিক্রি হয়েছেন তা উনি নিজেই জানেন না”।
কানাই মণ্ডলের দাবি, মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সরকারের উন্নয়ন দেখেই তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন তিনি। কানাই মণ্ডলের দাবি, লোন নিয়ে গাড়ি কিনেছেন তিনি। বেতনের টাকা দিতে শোধ দিতে হয় সেই লেন।
কানাইয়ের আরো বলেন , নারদায় হাত বাড়িয়ে টাকা নিয়েছেন শুভেন্দুই।

ছবি: তৃণমূলের যোগদান কানাই মন্ডলের।