বাসে চেপেই কেরালা পাড়ি মুর্শিদাবাদের পরিযায়ী শ্রমিকদের

নিজস্ব প্রতিবেদন: কাজ নেই, কাজ দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও পূরণ হয় নি, পেটের জ্বালা মেটাতে কাজ তো করতেই হবে। তাই করোনা ভয় থাকলেও আবারও ভিন রাজ্যে পারি দিচ্ছেন মুর্শিদাবাদের বিভিন্ন প্রান্তের পরিযায়ী শ্রমিকরা। ট্রেন চলছে না, প্রায় সারে চার হাজার টাকা বাস ভাড়া দিয়েই বাসে করেই রওনা দিচ্ছেন কেরালার উদ্দ্যেশ্যে। ভগবানগোলা থেকে ডোমকল রাতের অন্ধকারে পরিযায়ী ছাড়ছেন ঘর। ভেবেছিলেন করোনা আবহে লকডাউনের জেরে জেলায় ফিরে কাজ পাবেন। কিন্তু কাজ জোটে নি। সংসার বাঁচাতে তাই ভিন রাজ্যে বাড়তি উপার্জনের জন্যই পরিযায়ী শ্রমিকরা চলে যাচ্ছেন। কাজ করে দু পয়সা রোজগারের আশায় আপনজনদের ছেড়ে, ঘর বাড়ি ছেড়ে দিন কয়েক ধরে ভগবানগোলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পরিযায়ী শ্রমিকরা চলে পারি দিচ্ছেন এভাবেই।

লকডাউনের সময় পরিযায়ী শ্রমিকরা স্পেশ্যাল ট্রেনে চেপে ফেরেন রাজ্যে। তারপর রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় চলে যান। পরিযায়ী শ্রমিকদের কাজ দেওয়ার জন্য নানান ব্যবস্থার কথাও শোনা যায়। আসার পর কি হল? পরিযায়ী শ্রমিকদের কেন আবার করোনা কালে ফিরে জেতে হচ্ছে? ডোমকলের বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দা, পরিযায়ী শ্রমিকদের গলায় আক্ষেপের সুর।

চলো যাই কেরালা- এভাবেই বাসে করে মুর্শিদাবাদ থেকে কেরালা যাচ্ছে শয়ে শয়ে পরিযায়ী শ্রমিক।

চলো যাই কেরালা, ভিন রাজ্যে পারিশ্রমিক বেশি, রোজগারের পথ আছে, তাই করোনা ভয় তাদের নেই, ভয় কাজ না পাওয়ার, ভয় অভাবের।

স্পেশ্যাল রিপোর্ট, মধ্যবঙ্গ নিউজ