বহরমপুরে উধাও বসন্ত। শহর সেজেছে রঙিন কংক্রিটে

মধ্যবঙ্গ ডিজিটাল ডেস্কঃ বসন্তে মিঠে রোদ, পাতাঝরা রাস্তা, নাম না জানা রঙ-বেরঙের ফুল, পাখি সবই বাংলার চেনা ছবি। কিন্তু আজকের বহরমপুর  শহরে এ ছবি আজ খুঁজে পাওয়া দায়। আজকের শহরের বসন্তের ছবিটা ঠিক কী?

শীত শেষ। আবহাওয়া বলছে শহরে বসন্তের এসে গিয়েছে । তবে বসন্তের চেনা ছবি আজ কোথায়? কোথায়  পাখির দল? কোথায় শিমুল? কোথায় পলাশ? শহর জুড়ে ফুটছে কী বসন্তের ফুল? এসেছে কী অচেনা  পাখির ঝাঁক । না, এই বসন্ত ম্লান, অপ্রাকৃতিক। শহরে হারিয়ে যেতে বসেছে বসন্তের চেনা ছবি।

‘বসন্ত’ নামে একটা ঋতু ঠিকই, যা শীতের পরে আসে। তবে বসন্ত আজ নস্টালজিয়ায়। বসন্তেই দেখা যায় সোয়েটার খুলে কাঁধে নিয়ে স্কুল ফিরতি বাচ্চাকে। গত দশ বছরে আবহাওয়া পাল্টে গেছে, তার যথেষ্ট কারণও আছে। কিন্তু আজ এই বসন্ত স্থান পেয়েছে বইয়ের পাতায় একটা শুধুমাত্র একটি ঋতু হিসেবে।

বসন্তের প্রকৃতি জানান দেয় নতুনের। গাছে নতুন পাতা আসে, ফুল ফোটে, পরিযায়ী পাখির দল সেই ফুলের টানে এখানেই এসে জন্ম দেয় নতুন পক্ষী শাবকের। কই সেই বসন্ত বৌরি বা বেনে বউের দল! আজ খুঁজে পাওয়া দায় এই পাখিদের দলের। আজ থেকে হয়তো দশ বছর আগেও শহরের বিভিন্ন খাল-বিল পার্শ্ববর্তী এলাকায় দেখা যেত এই সব রঙ বেরঙের পাখিদের। আজ আর দেখা মেলে না তাদের। কোথায় এই বসন্তের পাখি, ফুল – এই বিষয়ে পরিবেশবিদ উন্মেষ মিত্র জানিয়েছেন, পরিবেশ সুস্থ থাকলে আমরা প্রকৃতির চেনা রূপ দেখতে পাব, কিন্তু আজ পরিবেশ সুস্থ নেই। তাই মেকি অপ্রাকৃতিক রঙ দিয়েই মানুষ চোখেকে সুখ দেবার চেষ্টা চলছে মাত্র।

শহর বহরমপুর

শহরের বিভিন্ন স্থানে কৃত্রিম ভাবে সৌন্দর্য বাড়াতে সবুজায়ন হয়েছে। হয়তো তা শহরের শোভা বাড়াচ্ছে কিন্তু সেই কৃত্রিম সবুজ ঘাসের ওপর না আসে পাখি, না ফোটে ফুল। বহরমপুরের বিভিন্ন রাস্তায় কৃত্রিম সবুজায়নের স্থাপত্য কোথাও বা সিমেন্টের গাছে ওপর নকল পাখির স্থাপত্য! এসবের থেকে পরিবেশের দিকে দৃষ্টি নিক্ষেপ করা উচিত নয় কী! গাছ হারিয়ে যাচ্ছে, পুকুর-খাল-বিল গায়েব হচ্ছে। আগে দশটা গাছে পলাশ কিংবা শিমুল ফুল ফুটত, এখন ফি বসন্তে শহরে দশটা নতুন ফ্ল্যাট গজিয়ে ওঠে, হরেক রঙের রঙিন কংক্রিটে সেজে উঠছে শহর বহরমপুর।

বসন্তে প্রকৃতি নতুন রূপে সেজে ওঠে। এই সময়ে নতুন করে সেজে ওঠে গাছপালা, পশুপাখি। বাকি সবই আজকের শহরে হচ্ছে, কিন্তু হারিয়ে যাচ্ছে প্রাকৃতিক রঙ। সব নিয়েই শহর বহরমপুরে আজকের বসন্তের ছবি ধূসর। রঙের যে ধারণা, তা প্রথমে আমরা পায় আমরা প্রকৃতি থেকেই, কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য আজ আমরা প্রকৃতিতে রঙ পাচ্ছি না। কৃত্রিম রঙের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি ধীরে ধীরে। বইয়ের পাতায় কিংবা রঙের দোকানে রঙ আছে যথেষ্ট, কিন্তু আজ প্রকৃতির রং ধূসর। আর কী কোনও দিন আমরা সেই প্রাকৃতিক রঙের দিকে ফিরতে পারব? দেখতে পাব বসন্তের সেই ছবি? নাকি সব কিছুর মতো বসন্তও জায়গা করে নেবে ঠান্ডা জাদুঘরে! থেকে যাচ্ছে প্রশ্ন ।