‘কৃষি বিল’ নিয়ে সরগম মুর্শিদাবাদের রাজনৈতিক মহল

নিজস্ব প্রতিবেদন: লোকসভার পর রাজ্য সভাতেও পাশ হয়েছে নতুন কৃষি বিল। আপাতত রাষ্ট্রপ্রতির শইয়ের অপেক্ষায় নতুন বিল। রাষ্ট্রপ্রতি এই বিলে শই করলেই কার্যকর হবে নতুন কৃষি বিল। কৃষক স্বার্থে এই বিল- এমনটাই বলছে কেন্দ্রীয় সরকার। যদিও এই নতুন বিলকে কৃষক স্বার্থে নয়, কর্পোরেট কোম্পানিগুলির স্বার্থে বলেই সুর চড়িয়েছে বিরোধীরা। ইতিমধ্যেই এই নতুন কৃষি বিলের বিরোধিতায় এবং বিল বাতিলের দাবিতে আগামী ২৫শে সেপ্টেম্বর মুর্শিদাবাদ জেলা জুড়ে আন্দোলনে নামার কথা ঘোষণা করেছে বাম কংগ্রেস নেতৃত্ব। মুর্শিদাবাদ জেলা কংগ্রেস মুখপাত্র জয়ন্ত দাস বলেন, ১৯৫৫ সাল থেকে ভারতবাসীর কাছে যা রক্ষাকবচ ছিল , অত্যাবশকিয় পণ্যের উপর থেকে কেন্দ্র সরকার নিয়ন্ত্রন তুলে দিল। যার ফেল কৃষকরা ভারতবর্ষে নতুন করে পরাধীন হবে, মুনাফা কৃষকদের থেকে কর্পোরেট হাউসের দিকে চলে যাবে।

কৃষি বিলের তিব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন সিপিআই (এম) মুর্শিদাবাদ জেলা সম্পাদক। কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের বিরোধিতায় সরব বর্ষীয়ান এই নেতা। তার দাবি, রাজ্য সরকারের উপর ভরসা নেই। কৃষকদের স্বার্থে জাতীয় সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন চলবে।

কৃষি বিল নিয়ে কটাক্ষের সুর তৃনমূল নেতার গলায়। মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূলের অন্যতম কো অরডিনেটর অশোক দাস বলেন, কৃষকদের পাশে রয়েছে রাজ্য সরকার। কৃষক স্বার্থ খুন্ন হয়েছে এমন কোন কিছুই সমর্থন যোগ্য নয়।

বিজেপি অবশ্য এই বিলকে কৃষক স্বার্থে বলেই দাবি করছে।